Posts Tagged ‘Basudeb Deb Academy Annual Literary Meet 2013’

2015

Advertisements

গত ২১ ডিসেম্বর ২০১৩,পশ্চিমবঙ্গ বাংলা আকাদেমির দোতলার সভাগৃহে সংসদের প্রথম বার্ষিক অনুষ্ঠান হল । মানুষের সাড়া পাওয়া গেছে বেশ ভালো । মিশ্র দর্শক ছিলেন । প্রথমেই বলে রাখা ভালো যে , এই অনুষ্ঠান গুলি এক না দুই দিনের আয়ু নিয়ে আসেনা । একটা কাজের পরিকল্পনার মাইলস্টোন হিসেবে একে দেখতে হবে ।

বাসুদেব দেব স্মারক বক্তৃতা 

Pabitra Sarkar in memorial speech 2013

Pabitra Sarkar in memorial speech 2013

অধ্যাপক পবিত্র সরকার সংসদের লক্ষ্যের দিকে তাকিয়েই আলোচনা করলেন একটি আধুনিক ভাষা বিজ্ঞানের বিষয় – চিহ্ন বিজ্ঞানের পটভূমি , প্রধান অতিথি, শিক্ষাবিদ ও দার্শনিক সৌরীন ভট্টাচার্য বললেন কবি বাসুদেব দেবের আবহ চেতনার উপর, সংক্ষিপ্ত পরিসরে । সভাপতি অধ্যাপক উত্তম দাশ ও বললেন বাসুদেবের কবিকৃতির কিছু কথা, কিছু স্মৃতি চারণ । সংসদের কথা তুলে ধরেন কবি সুব্রত রুদ্র এবং কবিকন্যা সুপর্ণা দেব । সংসদ , সাহিত্য নিয়ে আলোচনা ও গবেষণা ধর্মী কাজ করতে চায়, গড়তে চায় প্রবীণ ও প্রতিষ্ঠিত কবিদের সঙ্গে বর্তমান প্রজন্মনের ভাব ও মত বিনিময়ের একটি সেতু । সংসদ সম্মান এই চিন্তা ভাবনারই একটি প্রতিফলন । এটি কোন পুরষ্কার নয় । নির্জনে যারা সাহিত্য সাধনা করছেন, বড় কোন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের হাত নেই যাদের কাঁধে, সংসদ তাঁদের একটু উৎসাহ দিতে চায় । বাস্তবিক, এই সংখ্যাটা একটি , দুটি নয় । কিন্তু ব্যক্তিগত পুঁজিতে চলা, চাকুরীজীবী পরিবারের এই ব্যক্তিগত উদ্যোগে কতো মানুষকে পারে এই আওতায় আনতে । আর , বিশেষ ভাবে আমরা যখন বাসুদেব দেবের নামে কাজটি করছি, সেখানে তার দর্শনের কোথাও চলে আসে । ১২৫ টি মত বই থেকে বেছে নেওয়া হয় ৩০ টি । সেখান থেকে নির্বাচকরা সনাক্ত করেন দুটি বই । ১> সংহিতা বন্দ্যপাধ্যায়াএর প্রশ্ন চিহ্নের মতো বাঁকানো মূর্তিটি এবং সোমাভ রায়চৌধুরী র মেটাল রাগিণী । ওরাই পেলেন ২০১৩ বাসুদেব দেব সংসদ সম্মান । এদের গায়ে পড়লো আমাদের প্রয়াসের আলো । আভিনন্দন ।

1510403_782044395145609_1914382511_n

1469874_782044091812306_950697679_n

সৌরীন ভট্টাচার্য প্রকাশ করলেন দুটি গ্রন্থ ১) পথ চলে যায় প্রিয় ঠিকানায় ২)আরো কাছে যেতে । আশা করি ভিন্ন স্বাদের দুই বই পাঠকদের মধ্যে সাড়া পাবে । হই হই সাড়া নয় , গুঞ্জন।
1491609_480858635364276_689974154_n1471260_782077111809004_1981269146_n (1)
সঙ্গীত পরিবেশনায় জয়শ্রী ( রবিগান) পথিকৃৎ ( তোমার জন্য ) , অধুনা সাড়া জাগান তোমাকে চাই বা তুমি না থাকলে ধর্মী গান বাজারে আসার অনেক আগে , কবিতার আঙ্গিকে এই কথা গুলি তৈরি হয়েছিল । পথিকৃতের কণ্ঠ এবং সুর তাঁকে পাঠকের অ্যারও কাছে নিয়ে এলো ।

সবশেষে ছিল কবি সম্মেলন । যারা নিয়মিত কবিতা পড়েন , তারা মোটামুটি ৮/১০ টি কবিতা ব্যাগে রাখেন । আমরা চেয়েছিলাম তারা সাম্প্রতিক কোন কবিতা পড়েন, এক্কেবারে নতুন । এই প্রসঙ্গে কিছু কবিকে আমন্ত্রণ জানান হয়েছিল । ছয় থেকে শূন্য , প্রত্যেক দশক থেকে ৩ জন আমন্ত্রিত ছিলেন আনুমানিক । কবিদের নাম এইখানে আগেই দেওয়া হয়েছিল । সম্মান প্রাপক সংহিতাকে ডেকে নেওয়া হল ।
যশোধরা রায় চৌধুরী পেশাদারী দক্ষতায় কবি সম্মেলন পরিচালনা করলেন । নতুন মুখ গুলি এতো প্রতিশ্রুতির খোলা হাওয়া নিয়ে এলো আকাদেমির বন্ধ ঘরে যে মনে হচ্ছিল , এখানে আবার শুরু হোক । যশোধরার কথা ধার নিয়েই বলি যে সবচেয়ে ভালো খাবারটা সবার আগে খাবো , নাকি শেষ পাতে ( রান্নার প্রসঙ্গ ছাড়া বাংলা উপমা অসম্পূর্ণ )।

558165_782076921809023_1623631860_n1479499_237139783127225_1652015197_n

আমরা কোন কবিকে সেরা বলতে চাইনি । সেই ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য আমাদের নেই । আমার চেয়েছিলাম , কবিরা সাম্প্রতিক কোন কবিতা পড়ুন । অনেকে আমাদের এই ভাষা ব্যাবহারে অখুশি , এতে আমরা আন্তরিক দুঃখিত । এটা বোঝাতে চাইনি । প্রথমে ঠিক ছিল লিখব কবির পছন্দের ২০১৩ র কবিতা । তারপর ছোট করতে গিয়ে , কোথাও চোট লেগে গেল । দুই এক বিন্দু বীর রস দরকার এই চোট থেকে চট করে সেরে ওঠার জন্য ।


২:৩০ ঘটার অনুষ্ঠান কতো মানুষ কে ডাকি বলুন তো ?

যারা একটু অহং ব্যাপারটা কে সামলে নিয়েছেন তারা বুঝবেন যে, সবাইকে খুশি করা যায় না । খুশি করার কোন সঙ্কল্প নিয়েও আমরা আসিনি । আবার অজন্তা সার্কাস , বা ধুম ৩ ও , দেখানো হচ্ছেনা ( ওদের প্রতি সম্মান জানিয়েও ), টিকিট কেটে বিনোদন ক্রয় করলে আমাদের অনুযোগ থাকে না । আমি কেন মিশর রহস্যে পার্ট কললাম না , আমারও তো বেশ দাড়ি গোঁপ , নাটক টা ভালো করি । কিন্তু এই সব অনুষ্ঠানে, মানুষের একটা বক্তব্য চোখে পড়ে , ওখানে আমার ভূমিকা কি ? কেন দর্শক , অভিভাবক , পরামর্শদাতা । কেন সব সময় , বেদীতে উঠতেই হবে । তাহলে তো এদের ভীষণ সিন বেদি বলতে হবে ।

আর কতো ব্যাপারে কতো সহজে , আমরা যারা এই শিল্পটিল্প করি , তারাও ১০০ ১৫০ টাকা খরচ করে ফেলি , সস্তার টি শার্ট , সস্তার কোলন , বার্গার , পিতজা বা রোলে …সব সময় যে দরকার তাও নয় …তাও করি…কিন্তু ঐ দামে কোন নিবিষ্ট শিল্পীর বই কিনতে গেলে অনেক ভাবতে হয় …বাবা বলতেন ঈশ্বরের দেওয়া ফ্রি জিনিস গুলোয় আমাদের মন নেই…এই যে রোদ , জল , বাতাস , ভালবাসা…

যাই হোক ফেসবুক আমাদের যে প্রায় অনন্ত দেয়ালটি দিয়েছে সেখানে অনেক কিছুই তো লিখলাম , এই এক বছরে । দেখবেন গত ৩রা ডিসেম্বর ২০১২ , বাসুদেব দেব স্মরণ অনুষ্ঠানের ফলোআপ দিয়ে শুরু , তখন ফেসবুকের বন্ধু বলতে চৈতালি চট্টোপাধ্যায় , সুব্রত সরকার আর যশোধরা রায় চৌধুরী । আমি নিজে এই ফেস বুক বা সোশাল মিডিয়ায় সঞ্জাত পিটাবাইট তথ্যের মধ্য দিয়ে ব্যবসায়িক সত্য উদ্ঘাটনের পেশায় যুক্ত । লিখতে হয় নানা রকম লজিক । তাই আমি এর শিকার হতে চাইনি । কিন্তু দেখলাম মানুষ এগিয়ে আসে, হাত বাড়িয়ে দেয় , হাত ধরে থাকে । আর এটাই উৎসাহ দিয়েছে গত এক বছরে । এটা ছিল পারসোনাল ভেঞ্চার । আমার দিদি সুপর্ণা আর আমার , মূলত । এখন এটা আর পারসোনাল নেই । বাসুদেব দেব ছড়িয়ে পড়ছেন তীব্র ভাবে সহজ ভাবে একটা মিশন হয়ে ।

  • ( এই লেখাটা কাউকে জোর করে পড়াতে চাইনা , ইচ্ছে হলে শেয়ার করুন । দেশ বা আনন্দবাজারে বিজ্ঞাপন দেবার অর্থ আমার নেই , থাকলেও দেবোনা । এভাবেই বিস্তার পেতে চায় সংসদ , ধীরে , স্থায়ী ভাবে, বিশ্বাসযোগ্যতার সঙ্গে )

Basudeb Deb Academy Annual Literary Meet 2013 | বাসুদেব দেব সংসদ বার্ষিক সাহিত্য সম্মেলন ২০১৩ ।

please join | সাদর আমন্ত্রণ