Archive for the ‘Uncategorized’ Category

২২ জানুয়ারি ২০১৭ য় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল কবি বাসুদেব দেব সংসদের  বার্ষিক সম্মেলন । স্থান অবনীন্দ্র সভা গৃহে ,নন্দন সাংস্কৃতিক প্রাঙ্গন   । এবারে প্রধান অতিথি ছিলেন বিজ্ঞানী – দার্শনিক সজল বন্দ্যোপাধায়। স্মারক বক্তৃতায় বিজ্ঞানী বন্দ্যোপাধায় তুলে ধরেন মস্তিস্ক বিজ্ঞান এবং মহাজাগতিক সুত্রের সঙ্গে কবিতার সম্পর্ক । গবেষণালব্ধ তথ্য দিয়ে ব্যখ্যা করলেন আজ কিভাবে মানুষের সভ্যতা , বিবর্তনের থেকে দূরে সরে যাচ্ছে । প্রযুক্তির অপপ্রয়োগ এবং এই সুত্রে শিল্পের ভূমিকাকে বাঁধলেন মহাজাগতিক নিয়মের সুত্রে ।

এই বছর থেকে প্রথম শুরু হল কবির নামাঙ্কিত সম্বর্ধনা । কবির সমসাময়িক এবং পরবর্তী প্রজন্মের কবিকে সম্বর্ধিত করা হয় তাঁদের আজীবন সাহিত্য অবদানের স্বীকৃতির জন্য । ৫০ এর অন্যতম প্রধান কবি সুধেন্দু মল্লিক এবং ৭০ এর কবি দীপক হালদারকে সম্বর্ধিত করা হল ।

কবি বাসুদেব দেব সংসদ সম্মান ২০১৬ পেলেন মৌলিনাথ বিশ্বাস ( প্রাতিষ্ঠানিক বৃত্তের বাইরে বাংলা কবিতা গবেষণার জন্য )  এবং দীপাঞ্জনা শর্মা ( নিম্ন বুনিয়াদি কাব্যগ্রন্থের জন্য ) । অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করলেন সৈয়দ হাসমত জালাল এবং শেষে ছিল  যশোধরা রায়চৌধুরী সঞ্চালিত কবি সম্মেলন ।

কবিতা পাঠে ছিলেন  দীপাঞ্জনা  শর্মা,  রেহান কৌশিক, সৌভিক বন্দ্যোপাধ্যায়,সোমাভ রায়চৌধুরী , পার্থজিত চন্দ , সংহিতা বন্দ্যোপাধ্যায় , সুব্রত সরকার, চৈতালি চট্টোপাধ্যায় , সৈয়দ হাসমত জালা্‌ল, মৌলিনাথ বিশ্বাস, জপমালা  ঘোষ রায়, দীপক হালদার , সুধেন্দু মল্লিক, পূষন দেব এবং যশোধরা রায়চৌধুরী।

বাসুদেব দেবের কয়েকটি কবিতা নিয়ে আলেখ্য পাঠ করলেন শুভা দাশগুপ্ত । দীপাঞ্জনার গান এবং শুভার আলেখ্য উৎসর্গিত হল, সদ্য নির্বাণ প্রাপ্ত কবি পত্নী মীরা দেবের স্মৃতির উদ্দেশ্যে । ঘণ্টা তিনেকের এই সম্মেলনে সুস্থ সংস্কৃতি আর বৈঠকি আড্ডার মেজাজে স্মরণ করা হল বাসুদেবকে  ।

কৃতজ্ঞতা ঃ কলকাতা দূরদর্শন , জয়ন্ত নারায়ণ মহান্তি , স্বর্ণেন্দু শতপথী, সুতপা ভট্টাচার্য, উইন গার্ড রিসার্চ , গান্ধী সেবা সঙ্ঘ, ইকা , রাজ্য চারুকলা পর্ষদ ।

 

 

Advertisements

স্থান – গৌড় বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়য় , মালদা, পশ্চিম বঙ্গ
দিন ক্ষণ – ১৯ – ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৪
বিষয় – আধুনিক বাংলা কবিতায় ব্যাতিক্রমী প্রয়াস
সঙ্গত ঃ কবিতা পাঠ
—————————————-
একটি আধুনিক কবিতা বিষয় কর্মশালা ও কবিতা পাঠের অনুষ্ঠান হয়ে গেল মালদায় গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় এবং কবি বাসুদেব দেব সংসদের যৌথ প্রয়াসে গত ১৯ – ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ । বর্তমান উপাচার্য মাননীয় গোপালচন্দ্র মিশ্র অনুষ্ঠানের পৌরোহিত্য করেন । দুই দিনের এই কর্মশালা “আধুনিক বাংলা কবিতায় ব্যাতিক্রমী প্রয়াস ” এর উপর , তাঁদের নানা মতামত তুলে ধরেন অধ্যাপক এবং বিশিষ্ট কবিরা । আলোচনায় অংশ গ্রহণ করেন গোপা দত্তভৌমিক, সুতপা ভট্টাচার্য, সুনিমা ঘোষ, বিকাশ রায়, ঋষি ঘোষ প্রমুখ অধ্যাপকেরা এবং পাশাপাশি কবি সুব্রত রুদ্র, মৃদুল দাশগুপ্ত , গৌতম ঘোষদস্তিদার, সুব্রত সরকারের মত লব্ধ প্রতিষ্ঠ কবিরা । এই আলোচনার একটা বড় অংশ জুড়ে ব্যাতিক্রমী প্রয়াসের আলোয় কবি বাসুদেব দেবকে খোঁজার চেষ্টা ছিল লক্ষণীয় । অনুষ্ঠানের পরবর্তী পর্যায়ে ছিল কবিতাপাঠ । কবিতা পাঠে ছিলেন মালদা এবং দিনাজপুরের বেশ কিছু নবীন প্রবীণ কবি – প্রীতম বসাক, অয়ন গোস্বামী, রাজীব সিংহ, নুরুল ইসলাম, তৃপ্তি সান্ত্রা, মহাশ্বেতা মুখোপাধ্যায়, শুভেন্দু পাল, ব্রততী ঘোষরায় , বিশ্বনাথ লাহা , শুভেন্দু বক্সি, রতন দাশ , বিভূতিভূষণ মণ্ডল, দীপাঞ্জনা শর্মা, উমাশঙ্কর বড়ুয়া , শান্তনু বিশ্বাস । অনুষ্ঠানটি পরিচালনায় ছিলেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সৌরেন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং পরিকল্পনা করেন কবিপুত্র পূষন দেব । বাসুদেব দেবের প্রসঙ্গে এই আলোচনায় অনিবার্য ভাবে উঠে আসে রবীন্দ্রনাথ ও জীবনানদের কথা । এবং সঙ্গে আলোচিত হয় বিনয় মজুমদার, অরুনেশ ঘোষ , বুদ্ধদেব দাসগুপ্ত , ভাস্কর চক্রবর্তী প্রমুখের কবিতা । আলোচনায় সত্তরের কবিরা মূল ভূমিকা নেওয়াতে আলোচনা মূলত প্রাক ছয়, ছয় এবং সাতের দশকেই সীমাবদ্ধ ছিল ।
এই আলোচনা সভায় এটাই উঠে এলো যে , মানুষের জীবনে কবির ভূমিকা অপরিহার্য । সভ্যতা যতদিন থাকবে কবিতাও থাকবে । কবি অর্থ – যশ – মান প্রার্থী নন । আসন্ন ধ্বংসের এক সেকেন্ড আগেও কবিতা লেখা হয় আর কেউ পড়বেনা জেনে । কবিতা এক ক্ষরণ । একজন নিরলস কবিতাকর্মিই কবি যিনি ফলাফলের পিছনে না ছুটে অনুশীলন করে যান । তাঁরা নিজেই নিজের মাপকাঠি । কবির মধ্যে যুগ ধর্ম থাকে , তবু কেউ কেউ সচেতনভাবে ঠিক করে নেন তিনি সেই স্রোতে নিজের মতো থাকবেন । সেই নিজেরমত থাকা হয়ত তাঁদের জীবৎকালে তাঁদের জনপ্রিয় করেনা, সেটা তাঁদের লক্ষ্যও থাকেনা । চিরকালীন ক্যানভাসে অনেকে উজ্জ্বল হয়ে ওঠেন , অনেকে হারিয়ে যান । । কোথাও হয়ত একদল কবি প্রচলিত ধারার বিরুদ্ধে নিজেদের সচেতন স্বাতন্ত্র ঘোষণা করেন । সেটা নিয়ে হই চই হয় । হই চই তাঁদের প্রচার আলোয় নিয়ে আসে । কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বকালীন ঢেউ থেমে গেলে দেখা যায় সেই সব আন্দোলনে খুব বেশি বস্তু ছিলনা । বিভিন্ন সংস্থা বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলি এই সব আনলোকিত মানিক্যনিচয়কে সাধারণের আলোয় নিয়ে আসার চেষ্টা করতে পারে । ষাটের কবি বাসুদেব দেব জীবদ্দশায় এইরকম একজন মানুষ ছিলেন । নতুন আলোয়, নতুনদের মধ্যে তাঁকে নিয়ে অনেক চর্চার প্রয়োজন, এই ধরনের আলোচনা সভায় বাসুদেব দেবের মতো নির্জনচারি, শুদ্ধ মানবতাবাদী মুখ গুলি উজ্জ্বল হয়ে ওঠে ।

আরো কাছে যেতে  , কবির লেখা কবিকে নিয়ে লেখা একটি স্মরণ গ্রন্থ শুধু নয়, এই বইটি যেন এক ত্রি পার্শ্ব কাচ । প্রচ্ছদে কবি বাসুদেব দেবের তরুণ বয়সের ছবি । উত্তরবঙ্গে একটি নদীর ধারে , স্মিত , শান্ত মুখচ্ছবি । নদীটি পরে আবহমান হয়ে উঠবে, তরুণ কবি পরিণত হয়ে উঠবেন । ফাস্ট ফুড নয়, সময় নিয়ে, সুনির্বাচিত ভাবে নিজের হাতে গড়ে তুলবেন তাঁর অন্তরাত্মা, বহিরঙ্গ । নদী যেমন সমুদ্রে গিয়ে মেশে, তিনি উত্তীর্ণ হবেন সমকালীন কোলাহল থেকে । বৃক্ষের মৃত্তিকালগ্নতা আর উড্ডীন ভঙ্গী, নদীর বহমানতা । এটাই বাসুদেব দেব । তাঁর প্রিয় নন্দিনী সুপর্ণা , একাধারে পালন করেছেন এই বিরল অভিভাবকটির সন্তান কৃতি এবং নিরপেক্ষ সম্পাদকের ভূমিকা । কবি বাসুদেব দেবের একটি প্রবন্ধ তুলে দিলাম, বইটির এক ঝলক…amader_ghuri_bdeb0001 ( click here)1467274_479596815490458_388603415_n

পথ চলে যায় প্রিয় ঠিকানায় ‘ থেকে একটি ছোট পাঠ তুলে দিলাম, এরকম অনেক ব্যক্তিগত অনুষঙ্গ জুড়ে জুড়ে তৈরি হয়েছে বইটি, তিরিশ বছরের বেশি সময় ধরে লেখা কবির ডায়রি , সমালোচকরা বলছেন “কবিতা নির্মাণের ব্যাকস্টেজ, জীবনের উল্লম্ব খননশৈলী” , সম্পাদনা ঋষি ঘোষ… তৈল চিত্র গুলি শিল্পী অরুন্ধতী রায়চৌধুরীর

1491609_480858635364276_689974154_n

Extract 1 from poth chole jay

Little Mag Fair 2014

Little Mag Fair 2014

বাসুদেব দেব আছেন

বাসুদেব দেব আছেন